রংপুরস্থানীয়

ওই নারীকে হত্যার অভিযোগ, নিহতের স্বামীর দিকে পুলিশের সন্দেহের তীর

তারার আলো খবর: রংপুরের তারাগঞ্জের সেই নারীর লাশ ময়না তদন্ত শেষে বুহস্পতিবার(৯ আগষ্ট) বিকেলে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। গত বুধবার (৮সেপ্টম্বর) ওই নারীর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করেন পুলিশ। স্ত্রী শিল্পীর লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করার সময় তার স্বামী মোস্তাকিম কৌশলে পুলিশের সামন থেকে সটকে পড়েন। পুলিশের সন্দেহের তীর এখন তার দিকেই। থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ দিনভর মোস্তাকিমকে খুঁজে ব্যর্থ হয়েছেন।

মামলা ও এলাকাবাসি সুত্রে জানা গেছে, ওই নারীর নাম তাসলিমা আক্তার শিল্পী (৩৫)। তিনি উপজেলার হাড়িয়ারকুঠি ইউনিয়নের ঝাকুয়াপাড়া গ্রামের মোস্তাকিমের স্ত্রী। প্রায় ২০ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের বর্তমানে তিন মেয়ে মোসাদ্দেকা (১৬), মোশরেফা (১৪), জান্নাতুল মাওয়া (১২) এবং তামিম নামের একটি ৪ মাসের ফুটফুটে ছেলে সন্তান রয়েছে।

ঘটনার দিন:-

গত মঙ্গলবার(৭ আগষ্ট) রাত ১২টার আগে শিল্পী বেগম ঘুমিয়ে পড়েন। পরেরদিন গত বুধবার ভোর সাড়ে ৫টায় শিল্পীর দ্বিতীয় মেয়ে মোশরেফা খাতুন মাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পায়। সে তার মাকে মাটিতে মৃত অবস্থায় দেখতে পান। খবর পেয়ে থানা পুলিশ উপস্থিত হয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে লাশ থানায় নিয়ে আসে। বৃহস্পতিবার সকালে লাশের ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। লাশের ময়না তদন্ত শেষে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসীর দাবি শিল্পী ও মোস্তাকিমের মধ্যে প্রায় সংসারের সামান্য কিছু বিষয় নিয়ে মতবিরোধ দেখা দিত। প্রায় প্রায় তাদের মধ্যে ঝগড়া হতো। এজন্য মোস্তাকিম তার স্ত্রীকে পাগল বলত। তাদের ধারনা মোস্তাকিম পূর্ব পরিকল্পনা মতো তার স্ত্রীকে গলা টিপে হত্যা করে বিষয়টি অন্যখাতে প্রবাহের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। পরে পুলিশ লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করার সময় গলায় আঘাতের চিহৃ পেয়ে যাওয়ায়। বিষয়টি মোস্তাকিম টের পেয়ে যায়। এসময় মোস্তাকিম গ্রেফতার এড়াতে পুলিশের চোখের আড়াল হয়ে আস্তে করে কেটে পড়ে নিখোঁজ হয়ে যায়।

নিহতের স্বামীর খুঁজে পুলিশ:-

স্ত্রী শিল্পীর লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করার সময় তার স্বামী মোস্তাকিম কৌশলে পুলিশের সামন থেকে সটকে পড়েন। অনেক খোঁজাখোজির পর মোস্তাকিমকে হাতের নাগালে না পেয়ে এবং লাশের গলায় কালো দাগ দেখতে পেয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারনা করেন। থানা পুলিশ পরিবারের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

নিহতের পিতা বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের:

পরে ওই দিন (৮ আগষ্ট) রাতেই শিল্পীর পিতা তফছির উদ্দিন বাদী হয়ে তারাগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং-০৬, তারিখ ৮/৯/২০২১ ইং। হত্যা মামলার অভিযোগে বাদী তার মেয়েকে তার জামাতা মোস্তাকিম পূর্ব পরিকল্পিতভাবে গলাটিপে হত্যা করা সহ বিস্তারিত বিবরণ দেন।

তারাগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফারুক আহম্মেদ জানান, শিল্পীর স্বামী মোস্তাকিম পলাতক রয়েছে। এ বিষয়ে থানায় হত্যা মামলা হয়েছে। লাশের গলায় কালো দাগ থাকায় পুলিশের সন্দেহের তীর এখন তার দিকেই। পুলিশ তার অবস্থান জানার জন্য কাজ করছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button