নীলফামারী

কর্মসংস্থান কর্মসূচির ৩১৮ জন উপকারভোগী নির্বাচন সম্পন্ন

স্টাফ রিপোর্টার, সৈয়দপুর (নীলফামারী):
নীলফামারীর সৈয়দপুরে চার নম্বর বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির উপকারভোগী যাচাই- বাছাই ও লটারীর মাধ্যমে উপকারভোগী নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারী)সকালে বোতলাগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে ২০২১-২০২২ অর্থবছরে (ইজিপিপি) অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির আওতায় ওই উপকারভোগী যাচাই-বাছাই ও লটারীর মাধ্যমে উপকারভোগী নির্বাচন করা হয়।

বোতলাগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় চত্বরে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন।

বোতলাগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ আলী’র সভাপতিত্বে লটারী মাধ্যমে উপকারভোগী নির্বাচনকালে বক্তব্য দেন সৈয়দপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. আবু হাসনাত সরকার।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে সৈয়দপুর উপজেলা সমবায় অফিসার ও ইজিপিপি’র বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের ট্যাগ অফিসার মো. জাকির হোসেন, বোতলাগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ সচিব মো. আব্দুল মান্নান সরকারসহ সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

পরে প্রধান অতিথি সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন লটারীর মাধ্যমে উপকারভোগী নির্বাচনের শুভ উদ্বোধন করেন।

বোতলাগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, অতিদরিদ্রদের কর্মসংস্থান কর্মসূচির উপকারভোগীর জন্য ইউনিয়নের নয়টি ওয়ার্ডের পুরাতন ও নতুন মিলে তিন হাজার ৭ শ’ আবেদন জমা পড়ে। এদের মধ্যে থেকে লটারীর মাধ্যমে ৩১৮জন উপকারভোগীকে নির্বাচন করা হয়েছে।

সৈয়দপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নে চলতি ২০২১-২০২২ইং অর্থবছরে অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির (ইজিপিপি) আওতায় সর্বমোট এক হাজার ২১৭ জন উপকারভোগী নির্বাচন করা হবে।

এদের মধ্যে উপজেলার এক নম্বর কামারপুকুর ইউনিয়নে ২১৯ জন, দুই নম্বর কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নে ২৮০ জন, তিন নম্বর বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নে ১৭৮ জন, চার নম্বর বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের ৩১৮ জন এবং পাঁচ নম্বর খাতামধুপুর ইউনিয়নে ২২২ জন উপকারভোগী রয়েছে।

উপকারভোগীরা প্রথম পর্যায়ে ৪০ দিন কাজ কবরেন। তারা প্রত্যেকে প্রতিদিন ৪শ’ টাকা করে মজুরী পাবেন। উপকারভোগী মজুরী জিটুপি পদ্ধতিতে পরিশোধ করা হবে। অর্থাৎ উপকারভোগীদের বিকাশ অথবা নগদে একাউন্টের মাধ্যমে পরিশোধ করা হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button