রংপুর

ছুটছে শহরে, বদল করছে পেশা

স্টাফ রিপোর্টার,গঙ্গাচড়া (রংপুর)
গত বুধবার সকালে রংপুরে কাজে যাওয়ার সময় দেখা হয় উপজেলার লক্ষীটারী ইউনিয়নের পুর্ব ইচলী এলাকার মাসুদ,একরামুল, রমজান ও হালিম মিয়ার। ১২ কিলোমিটার দুর থেকে রংপুর শহরে গিয়ে শ্রম বিক্রি করতে যাচ্ছে ।সাইকেলের পিছনে বাঁধা ডালি ও কোদাল। নদী ভাঙ্গা এলাকার মানুষ। গ্রামে বর্তমানে কাজের অভাব। তাই শহরে যাচ্ছেন কাজের জন্য ।

এ সময় তারা জানান, সব দিনে তারা কাজ পাননা । গজঘন্টা ইউনিয়নের কিসামত হাবু গ্রামের দিনমজুর আমজাদ হোসেন গ্রাম থেকে এসে শহরে জাম্বুরা বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছে। হাবু কুঠিরপাড় গ্রামের হযরত আলী, মহাব্বত, আশেক আলী, কিসামত হাবু গ্রামের দিনমজুর মন্টু, মানিকুল, মোজাসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় হাজার হাজার কৃষি শ্রমিক এখন বেকার হয়ে পড়েছেন। তাদের হাতে কোন কাজ নেই। পরিবার পরিজন নিয়ে দুর্বিসহ জীবনযাপন করছে। অনেকে কাজের সন্ধানে ছুটছে শহরে। কেউবা পেশা বদল করেছে। ধার-দেনা কিংবা আগাম শ্রম বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করছে। অনেকে বাড়ীর পোষা হাঁস-মুরগী, গরু-ছাগল, গাছপালা বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছে। শ্রমিকরা জানান, আমন ধান লাগানোর পর থেকে ২ মাস ধরে তাদের কাজ নেই। ধানের কাটামাড়ি আসতে এখনো দেড় মাস লাগবে। এ অবস্থায় কঠিন জীবন যাপন করছে শ্রমিকরা ।

উপজেলা ত্রাণ অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ০৯ ইউনিয়নে ২৫ হাজার দুস্থ পরিবার রয়েছে। এসব পরিবার ২ মাস ধরে অভাব-অনটনের মধ্যে দুর্বিসহ দিনাতিপাত করছে।
লক্ষীটারী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল হাদী বলেন, আশ্বিন-কার্তিক মাস শ্রমিকদের কাজ না থাকায় এ সময় তাদের ঘরে ঘরে অভাব।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মনিমুল হক বলেন, অক্টোবর থেকে কাজ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে তবে চিঠি এখনো পাননি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button