রংপুরস্থানীয়

‘ টাকুর আলীর বয়ান ’ দ্যাশটাত হৈ হৈ রৈ রৈ উঠি গেইছে বাহে

পদ্মা সেতু নিয়া কয়দিন থাকি তো বাহে দ্যাশটাত হৈ হৈ রৈ রৈ উঠি গেইছে বাহে। গত (২৫শে জুন) শনিবারের কথা আর কন না। সেই দিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু উদবোদনের পর পরে সারা দ্যশের মানুষ ঢাক ঢোল মাইক নিয়া গান বাজনা নাচা নাচি করি সোবায় রাস্তাত আনন্দ মিছিল করে।

হামার তারাগঞ্জতো উপজেলার সগুলা অফিসার কর্মচারী উপজেলার চেয়ারম্যান ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেম্বার আওয়ামীলীগের সভাপতি সেকরেটারী থাকি শুরু করি বড় নেতা ছোট নেতা সোবায় মিলি পদ্মা সেতুর ছবি ওলা বেনার নিয়া গোটা তারাগঞ্জটাত মিছিল আর উৎসব করে। আর কয়দিন থাকি তো টেলিভিশন খুললে তো পদ্যা সেতুর কথা ছাড়া আর কোনো আল্লাপ নাই।

পদ্মা সেতু নিয়া এতো মাতামাতি ক্যনে বাহে। নিন্দালুর কথা শুনিয়া রজব মাষ্টার কয়ছে বাহে নিন্দালু চাচা পদ্মা সেতু হয়ছে হামার অহংকার বাংলাদেশের মাইসের অহংকার বাংলাদেশের অহংকার। ছয় কিলো মিটারেরো বেশী পুল বাহে তাও ফির পদ্মা নদীর উপর। বিদেশের কারো কাছে কোনো টাকা না নিয়া হামার প্রধানমন্ত্রী দ্যশের টাকা দিয়া এতো বড় পুল বানাইছে তা দেখি সারা বিশ্বের মানুষ হবাক হইছে। পদ্মা সেতুর কাজ যখন শুরু হয় তখন দ্যশ বিদেশের অনেক জাদরাইল জাদরাইল মানুষ কছিলো পদ্মা নদীর বুকত পুল বানের পাইবে না।

কিন্তু হামার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নাছোর বান্দি উনি কারো কথা তোয়াক্কা না করি দ্যশ বিদেশের বড় বড় ইঞ্জিনিয়ার আনি পেলান করি দ্যশের টাকায় পদ্মার বুকোত পুল বানাইছে। এতো বড় লম্বা পুল দুনিয়াইত কমে আছে। সেই জৈন্যে তো এতো আনন্দ এতো মিছিল নিন্দালু কয়ছে বুঝছু বাহে বুঝছ এই বারনি ভালো করে বুঝছু শেখের বেটীর হিম্মত আছে।

রজব মাষ্টার পেপার পরছিলো পেপার বাদ দিয়া কয়ছে বেটা এই বার বুঝলু। নিন্দালু পেপারখান হাতোত নিয়া কয়ছে বাহে মাষ্টারের বেটা এখান পেপার যে তারাগঞ্জ থাকি বেড়ায় তা এতুল্যা মাইসের ছবি ক্যনে বাহে। রজব মাষ্টার কয়ছে পেপার পরির পাইলে বুঝুলু হায়।

এই তারার আলো পেপার খান নয় বছর থাকি বেড়ায়ছে। এবার দশ বছরত পাও দিছে সেই জৈন্যে একটা অনুষ্ঠান হইছে। আর এই অনুষ্ঠানোত উপজেলা চেয়ারম্যান ইউএনও আওয়ামীলীগের সভাপতি, ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, আরো গৈন্য মাইন্য মানুষ উপস্থিত থাকি বকতিতা দিছে।

কেক কাটি পেপারের জন্মদিন করি সোবায় উৎসব কইরছে। এবার বুঝছিস তো। নিন্দালু কয়ছে এবার বুঝছু বাহে সেই জৈন্যে পেরায় মাইসের হাতোত তারার আলো পেপার খান দ্যাখোছো। সুববায় পেপারখান নিয়্যা খালি চোখ ন্যাগে দিয়া পড়োছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button