রংপুরস্থানীয়

‘টাকুর আলীর বয়ান’

দ্যশটাত কি হইল বাহে। আইজ বেলে এটা জিনিসের দাম বারেছে কাইল বেলে ওটা জিনিসের দাম বাড়েছে পশ্যুত যে আরো কি কি জিনিসের দাম বাড়েতা আল্লায় জানে।

কনতো বাহে তেল, নুন, সাবান, সোটা, ঔষধপাতির যে ভাবে দাম বাড়েছে তাতে তো হামার ইলার নানতিন ছোট গিরস্ত গিলার মরন ছাড়া আর কোনো পথ নাই। এমনিতে তো এবার দেওয়ার পানির অভাবে ওয়া গাড়াটায় নমলা হয়া যায়ছে।

যদিও মটারের পানি দিয়া ওয়া গাড়ির চাওছো তা কারেনের যে অবস্থা তাতে এক বিঘার জমিত পানি উঠতে দুই তিন দিন নাইগবে। কনতো কত চিন্তা করেন। পানির অভাবে পাটা কাটিয়া আস্তার ধারোত পালা দিয়া থুছি। পোকর গিলাতো পানি নাই।

চৈইত মাসি দিনের নানতিন দোলা বাড়ী ফাটিয়া চৌচির হইছে। আর আবাদ সুবাদে করিবেন কেমন করিয়া। ফসপেট পটাশের যে দাম তাতে ফির উরিয়ার দামো বাড়ি গেইছে। কনতো কি হইবে। চিন্তায় চিন্তায় মাথাটা মোর এমনি ঠিক নাই তাতে ফির মোর বুড়িটা ওর নাতনী বউ ভাতিজি বউ নাতি নাততি গিলাক দাওয়াত কইচ্ছে। আরে কয়দিন আগোতে কর ঈদের গোস্ত দিয়া খোয়া দেয়া বিদায় দিনো হায়।

তা না করিয়া ঈদের গোস্ত শ্যষ হয়া ওয় দুনিয়ার সাগাইক জড়াইছে। কেমন করি মাতাটা খারাপ না হয় কনতো। জুম্মার নামাজ পরিবার বেড়াইতে না বেড়াইতে বুড়িটা কয়ছে নামাজ পড়ি তাড়া তাড়ি আইসেন নাইতে ফির দোকানের পারত গল্পতে মাটি গরম করি ফেলান। হাট যাবার নাইকবে। কইনা গিলা বেলে কাইল সকালে সাটি মাছের ভত্তা আর পেলকা দিয়া নাস্তার ভাত খাইবে।

গোস্ত বেলে খাইবেনা। ডাক তোরের মাইয়াটা ইলশা মাছের কথা কয়ছে তাতে ফির তোমার আদরের নাতনি বউ মনেছা আকি আদেশা ওমরাও ইলশা মাছের কথা কয়ছে। কি আর কইবেন। পাইসার অভাবে মোর মাথা ভন ভন করেছে আর ওমরা পেটলি হাউস ধরি মোক খাবার আইছে।

বাইস্যার দিনোত দোলাত নাই পানি ডাইরকা পুটি মাছে পাওয়া যায়ছে না তাতে ফির কিনির নাইগবে সাটি মাছ, আর ইলশা মাছ। কি কপাল বাহে। শাওন ভাদোর মাস দেশী মাছ ইলশা মাছ খাইতে খাইতে আমাশা ধরি গেছিলো আর সেই শাওন ভাদোর মাস মাছ তো দুরের কথা মাছের আইসাও নাই।

যে তোকনে দিঘীর মাছ তাও তো ওনারো দাম বাড়ী গেইছে। মুইও পেলান কচ্ছু আগোত হাট যাও তারপর ওমাক সাটি মাছের ভত্তা আর ইলশা মাছ খোয়াইম এলা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button