রংপুর

ধর্ষণের শিকার সেই মাদ্রাসা ছাত্রীর মৃত্যু

তারার আলো অনলাইন ডেস্ক:- রংপুরের মিঠাপুুরে ধর্ষণের শিকার সেই মাদ্রাসার ছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। গত রবিবার রংপুরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়না তদন্ত শেষে জান্নাতী আক্তার সাথীর লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন। বড় বোনের বাড়িতে ১৩ দিন অবস্থানের পর গত শনিবার রাতে বিষপান করে অসুস্থ হলে রমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১১ টার দিকে তার মৃত্যু হয় বলে পরিবারের সদস্যরা জানান।

তবে আত্মহত্যার কি কারন তা স্পষ্ট নয় কেউ। মাদ্রাসা ছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় পরিবারে চলছে আহাজারি। জানা যায়, উপজেলার পায়রাবন্দ ইউনিয়নের জয়রামপুর আনোয়ার গ্রামের ভ্যান চালক মনছুর আলীর কন্যা সে। পরিবার-সুত্রে জানা যায়, গত ১৩ দিন ধরে মাদ্রাসা পড়ুয়া জান্নাতী আক্তার সাথী তার বোন রোকছেনার বাড়ী ভাংনী মাঠেরহাট যুগীপাড়ায় অবস্থান করছিল।

এদিকে গত শনিবার রাতে যখন সবাই রাতের খাবার খাচ্ছিল ঠিক তখন সবার চোখ ফাকি দিয়ে বিষপান করে অসুস্থ হয়ে পড়লে তখন বোন রোকছেনা ও তার দুলা ভাই আলআমিন টের পেয়ে দ্রুত রমেক হাসপাতালে নেয় এবং রাত ১১ টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

ওইদিন বাদ মাগরিব জাফর মাদ্রাসার পাশে কবর স্থানে তার দাফন করা হয়। এ বিষয়ে পায়রাবন্দ ইউনিয়নের বিট পুলিশ এসআই রবিউল ইসলাম ঘটনাস্থল তদন্ত করেন। এ বিষয়ে তার কাছে জানতে চাইলে বলেন, জান্নাতীর মৃত্যুর কারন ফরেনসিক রিপোর্ট না আসলে কিছু বলা যাচ্ছেনা বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য প্রতিবেশী মতিয়ার রহমানের ছেলে লাভলু ওরফে লয়েট (২০) ১ সেপ্টেম্বর দুপুর ১টার দিকে একই এলাকার তাজুল ইসলামের একটি পরিত্যাক্ত বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে ওই ছাত্রীকে।
ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। ধর্ষক লাভলু ওরফে লয়েট এ মামলায় জেলহাজতে রয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button