রংপুর

নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজের ৯ দিন পর মরদেহ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার,রংপুরঃ

রংপুরের কাউনিয়ায় তিস্তা নদীতে গোসল করতে নেমে বাসের হেলপার শামীম মিয়া নিখোঁজের ৯ দিন পর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

মঙ্গলবার(৩ আগস্ট) দুপুরে উপজেলার টেপামধুপুর ইউনিয়নের চরগনাই গ্রামের পাশে জেঁগে উঠা চর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এর আগে সোমবার (২৬ জুলাই) দুপুরে কাউনিয়া উপজেলার টেপামধুপুর ইউনিয়নের চর গনাই গ্রামে তিস্তা নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হন তিনি।

শামিম মিয়া ঢাকার মৌমিতা পরিবহন নামের বাসের চালকের সহকারী হিসেবে কাজ করতেন।

এলাকাবাসী জানায়, ঈদের আগের দিন তৈরি পোশাক কারখানায় কর্মরত কয়েকজন মিলে ঢাকার মৌমিতা পরিবহন নামের একটি বাস রিজার্ভ নিয়ে গ্রামে আসেন।  ঈদের ছুটি শেষে আবার সেই বাসে ঢাকায় ফিরে যাওয়ার কথা ছিল।  কিন্তু ২৩ জুলাই থেকে সরকার কঠোর লকডাউন ঘোষণা করলে ঈদে গ্রামে আসা তৈরি পোশাক কারখানার কর্মীরা, বাসের চালক, সুপারভাইজার ও চালকের সহকারীসহ গ্রামে আটকা পড়ে যায়। 

সোমবার দুপুরে মৌমিতা পরিবহনের স্টাফরা মধুপুর ইউনিয়নের গোলজার বাজারে বাস রেখে তিস্তা নদীতে গোসল করতে নামে। এ সময় নদীর তীব্র স্রোতে অন্যরা উঠতে পারলেও চালকের সহকারী শামিম মিয়া পানিতে ডুবে নিখোঁজ হয়। 

পরে খবর পেয়ে ওই দিনে কাউনিয়া ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরীদল শামিমের মরদেহ উদ্ধারে প্রায় ৫ ঘন্টা অভিযান চালিয়েও তাকে উদ্ধার করতে না পেরে অভিযান সমাপ্ত ঘোষনা করেন। শমিম মিয়া নিখোঁজের ৯দিন পর মঙ্গলবার দুুপুরে স্থানীয় জেলেরা নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে চরে একটি লাশ ভেসে থাকতে দেখে থানা পুলিশকে খবর দেয়। পরে কাউনিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। স্থানীয় লোকজন মরদেহের পরনের প্যান্ট দেখে নিশ্চিত হন এটি নিখোঁজ হওয়া শামিম।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button