রংপুর

নেশার টাকা না পেয়ে সাবেক পুলিশ সদস্যের গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা

তারার আলো খবর: মায়ের সঙ্গে ঝগড়া করে নেশার টাকা না পেয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন রেজাউল করিম লিটন(৩৬) নামে নামে পুলিশের এক সাবেক কনস্টেবল। বর্তমানে তিনি নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার শ্রমিক ছিলেন।

বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) ভোরের দিকে নিজ শয়নকক্ষ থেকে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মর্গে পাঠায়। লিটন উপজেলার গোপীনাথপুর ইউনিয়নের আরাজী দিলালপুর বলদিয়াপাড়া গ্রামের জিকরুল হক ও রাবেয়া বাশরী দম্পত্তির সন্তান। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) সিফাত ই রাব্বান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, রেজাউল করিম লিটন পুলিশের কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সেখানে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ায় তিনি চাকরিচ্যুত হন। এরপর তিনি নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার শ্রমিক হিসেবে কাজ শুরু করেন। এরমধ্যে লিটন আবারও ইয়াবার নেশায় আসক্ত হয়ে পড়লে তার স্ত্রী লাবনী আক্তার একমাত্র মেয়ে স্মৃতি মনিকে(১৩) নিয়ে বাবার বাড়িতে চলেন যান। এদিকে প্রতিদিন মাদকের টাকার জন্য তার মায়ের সঙ্গে ঝগড়া ফ্যাসাদ লেগে ছিল তার।

ঘটনার দিন গত বুধবার নেশার জন্য টাকা চাইতে গেলে মা রাবেয়া বাশরীর সঙ্গে লিটনের বাকবিতান্ডা হয়। টাকা দিতে অপারগতা জানায় তার মা। ওইদিন রাতে নিজ শয়ন ঘরের দরজা বন্ধ করে ঘুমিয়ে পড়েন লিটন। বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে দরজা ভেঙে ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচানো গলায় ফাঁস দেওয়া মরদেহ দেখতে পায় পরিবারের লোকজন। পরে পুলিশে খবর দেওয়া হলে তারা ঘটনাস্থল থেকে লিটনের মরদেহ উদ্ধার করে।
বদরগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান বলেন, প্রাথমিকভাবে আত্মহনন বলে মনে করা হচ্ছে। তবে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button