রংপুরস্থানীয়

নয় বছর ধরে বস্তুনিষ্ঠতা ও সাহসিকতার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে চলেছে সাপ্তাহিক তারার আলো

তারার আলোর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

তারার আলো খবর:-
সাপ্তাহিক তারার আলো রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলা থেকে প্রকাশিত একমাত্র একটি পত্রিকা হিসাবে চলমান উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির বড় অংশীদার। তারার আলো একদিকে যেমন জনমানুষের জীবন সঙ্কটের খবর পাঠকসমাজের সামনে সাবলীল ও বস্তুনিষ্টভাবে তুলে ধরেন, তেমনি দেশের স্বার্থে বহু অসংগতির খবর তারার আলো’র সম্পাদকসহ সাংবাদিকদের সাহসী কলমে উঠে আসে। দেশের চলমান উন্নয়নে আগামীতেও তারার আলো তারাগঞ্জসহ রংপুর অঞ্চলের মানুষের সঙ্গে থাকবে বলে বক্তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তারাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান লিটন বলেন, নয় বছর ধরে বস্তুনিষ্ঠতা ও সাহসিকতার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে চলেছে সাপ্তাহিক তারার আলো। পত্রিকাটির অবিচল ধারার সঙ্গে মিশে আছে তারাগঞ্জসহ রংপুর অঞ্চলের পাঠক সমাজ।

তারার আলো আজকে যখন নয়টি বছর পেরিয়ে দশ বছরে পদার্পন করলো, আমাদের সকলকে সহযোগিতা করতে হবে তারার আলো যেন তারার মতো জ্বলে। তারার আলোকে তারার মতো জ্বলতে হলে আমাদের তারাগঞ্জবাসী সকলেরই সহযোগীতা প্রয়োজন আছে। তারার আলো পত্রিকাটি আমাদের তারাগঞ্জ উপজেলা বাসীর জন্য গর্বের বিষয়। কারণ তারাগঞ্জ উপজেলা থেকে প্রকাশিত একটি মাত্র পত্রিকা তারার আলো।

তারাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রাসেল মিয়া বলেন, তারার আলো সারা সপ্তাহের আমাদের তারাগঞ্জের যেসকল ছোট বড় অনুষ্ঠান, নানা ঘটনা সেখানে প্রকাশ করে। গত এক সপ্তাহে তারাগঞ্জে কি কি ঘটেছে তা একদিনে তারার আলো পড়লে জানা যায়। তাই আমি সাপ্তাহিক তারার আলোর উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছি।

তারাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাবেক রংপুর জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব আতিয়ার রহমান বলেন, নয় বছর সময় ধরে সাপ্তাহিক তারার আলো তার বস্তুনিষ্ঠতা ও সাহসিকতার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে চলেছে। পত্রিকাটির অবিচল ধারার সঙ্গে মিশে আছে এ এলাকার পাঠক সমাজ। তাদের সুখ দুঃখের কথা, রাজনীতির কথা, খেলাধুলা, বিনোদন, সাহিত্য, শিক্ষাসহ সব চাহিদা পূরণ করে চলেছে পত্রিকাটি।

এতকিছুর পরও আমার জানা মতে এ পত্রিকার সম্পাদক সাংবাদিক খবির উদ্দিন প্রতি বছর ভূর্তকী দিয়ে দিয়ে পত্রিকা প্রকাশ অব্যাহত রেখেছেন। তাই তারার আলো গণমাধ্যমের এ প্রতিষ্ঠানটিকে টিকে রাখতে হলে আমাদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করতে হবে। বিশেষ করে সবাইকে পত্রিকাটি বেশি বেশি কিনে পড়তে হবে। যেন নিজেদের এলাকার পত্রিকা হিসাবে সবার হাতে হাতে পত্রিকা থাকে। এছাড়াও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা পণ্যের বিজ্ঞাপন প্রদান করে সহযোগিতা করতে হবে।

উপজেলা সদর(কুর্শা) ইউপি চেয়ারম্যান আফজালুল হক সরকার বলেন, পাঠক সমাজ ও স্থানীয় মানুষের ভালোবাসায় তারার আলো এগিয়ে চলছে। তারার আলো একদিকে যেমন জনমানুষের জীবন সঙ্কটের খবর পাঠক সমাজের সামনে সাবলীল ও বস্তুনিষ্টভাবে তুলে ধরেন, তেমনি দেশের স্বার্থে বহু অসংগতির খবর তারার আলো’র সম্পাদকসহ সাংবাদিকদের সাহসী কলমে উঠে আসে। আমাদের মতো ছোট্ট একটি উপজেলা থেকে সপ্তাহে নিয়মিত একটি পত্রিকা বের করা কষ্টসাধ্য ব্যাপার। একটি সংবাদপত্রে সাংবাদিক সহ বিভিন্ন শাখায় জনবল দরকার, সবমিলে একটি সংবাদপত্র পরিবার। পরিবারের সকলকে নিয়ে অর্থাৎ সকল শাখার জনবল নিয়ে পত্রিকা প্রকাশের কাজটি করতে হয়। সকলের পরিশ্রমের ফসলে আমরা একটি পত্রিকা হাতে পাই। গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠান হিসাবে সাপ্তাহিক তারার আলো পত্রিকার উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি ও উন্নতি কামনা করি।

উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক ও উপজেলা সদর(কুর্শা) ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান শাহিনুর ইসলাম মার্শাল বলেন, তারার আলো কিন্তু সূর্যের আলো নয়। আকাশের তারা যেমন অন্ধকার রাতে মানুষকে পথ দেখায়, ঠিক তেমনি তারাগঞ্জ থেকে প্রকাশিত একমাত্র পত্রিকা তারার আলোর কাজ হচ্ছে পথ দেখানো। তারার আলো আমাদের সকলকে পথ দেখিয়ে যাচ্ছে এবং আগামী দিনেও পথ দেখিয়ে যাবে বলে আশা রাখি। তারার আলো আমাদের যে শুধু পথই দেখায় তা নয়, তারার আলো আমাদেরকে স্বপ্নও দেখায়।

আর এই স্বপ্ন দেখানো. তারার আলো জন্য কিন্তু সহজ বিষয় নয়। আর এটি সহজ বিষয় নয় বলেই তারার আলোকে মাঝে মাঝেই অনেক কঠিন সময়ের মোকাবেলা করতে হয়। তবে আমরা গত নয়টি বছরে যা দেখেছি তাতে আমার মনে হয়েছে তারার আলো যে কোন কঠিন সময়ের মোকাবেলা করতে সম্পূর্ণ প্রস্তুত। আমি গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠান হিসাবে সাপ্তাহিক তারার আলো পত্রিকার উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি ও উন্নতি কামনা করি।

তারাগঞ্জ উপজেলার মানুষের একমাত্র মুখপত্র সাপ্তাহিক তারার আলো পত্রিকার ৯ম বর্ষ পেরিয়ে ১০ বর্ষে পদার্পন উপলক্ষ্যে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠিত হয়। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তারার আলো অফিসের অদূরে কুর্শা ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও কেক কাটার আয়োজন করে তারার আলো পরিবার।

এতে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান লিটন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রাসেল মিয়া ও তারাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক রংপুর জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব আতিয়ার রহমান।

তারার আলো সম্পাদক ও ইত্তেফাক প্রতিনিধি খবির উদ্দিনের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা সদর কুর্শা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আফজালুল হক সরকার, জাতীয় পার্টির উপজেলা আহবায়ক ও রংপুর জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য শাহিনুর ইসলাম মার্শাল, তারাগঞ্জ উপজেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সভাপতি ও বিএনপি নেতা আহসান হাবীব খান সাবু,

উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম ছাইদেল কাওনাইন (বায়েজীদ বোস্তামী), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাবিনা ইয়াসমীন, তারাগঞ্জ বণিক সমিতির সভাপতি জয়নাল আবেদীন আপান, আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাহারুল ইসলাম, তারাগঞ্জ বিএম কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল হামিদ, কুর্শা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় শিক্ষক ও আওয়ামীলীগ নেতা রবিউল হাসান রিপন,

কামারপুকুর ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক খন্দকার সাবরার জাহান শাহীন, জিয়াউল হক জিয়া, হাজারীহাট স্কুল ও কলেজের প্রভাষক খন্দকার শহীদুজ্জামান শামীম ও তারার আলোর টাকুর আলী নামে কলাম লেখক তারাগঞ্জ কামিল মাদ্রাসার প্রভাষক বাবুল হোসেন। এছাড়াও সাংবাদিক, পাঠক বিজ্ঞাপন দাতা, শুভানুধ্যায়ীসহ সহ স্থানীয় ব্যবসায়ী ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহবায়ক রিয়াদুন্নবী রিয়াদের সঞ্চালনায় আলোচনা সভা শেষে তারার আলো প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কেটে অনুষ্ঠানকে সাফল্য মন্ডিত করা হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button