রংপুরস্থানীয়

সেই আপন ২ ভাইকে পিছনে ফেলে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন অপর ভাই শহিদুল

তারার আলো খবর :

রংপুরের বদরগঞ্জে একটি ইউনিয়নে পারবারিক কলহের জেরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতায় আসা আপন তিন ভাইয়ের মধ্যে বড় দুই ভাইকে পিছনে ফেলে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন ছোট ভাই। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কালুপাড়া ইউনিয়নে।

জানা যায়, পৈত্রিক সম্পত্তিসহ নানান কারণে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে তিন ভাইয়ের মধ্যে। তারা হলেন কালুপাড়া ইউনিয়নের একরামুল হক, মোতালেব হোসেন ও শহিদুল হক। তিন ভাইয়ের মধ্যে একরামুল হক সবার বড়।

তিনি ১৯৯১ থেকে ১৯৯৫ সাল পর্যন্ত নির্বাচিত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন। এরপর পারিবারিক কলহের জেরে ছোট ভাই শহিদুল হক নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করলে ২০০৩ সালে তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

তখন থেকে তিনি ধারাবাহিকভাবে নির্বাচিত হয়ে আসায় টানা ১৮ ধরে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

এরমধ্যে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ২০২১ এর ২৬ ডিসেম্বর ৪র্থ ধাপের নির্বাচনে বদরগঞ্জ উপজেলার ১০ ইউনিয়ন পরিষদে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বড় ভাই একরামুল ও ছোট ভাই শহিদুলের পাশাপাশি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন মেজো ভাই মোতালেব হোসেন।

এবছর বড় ভাই একরামুল হক মোটরসাইকেল প্রতীক, মেজো ভাই মোতালেব হোসেন ঘোড়া প্রতীক ও শহিদুল হক আনারস প্রতীক এবং আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রার্থী সহ ৬ জন প্রার্থী ওই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্ধীতা করেন।

সকলকে পিছনে ফেলে আবারও নির্বাচিত হয়েছেন টানা ১৮ বছর ধরে নিষ্ঠর সাথে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করে আসা বর্তমান চেয়ারম্যান শহিদুল হক।

বদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আজিজুর রহমান বলেন, নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় ওই তিন ভাই কেউ কাউকে ছাড় দিয়ে কথা বলেননি। বরং তিন ভাই একে অপরকে আক্রমনাত্মক ভাষায় বক্তব্য দিতেন।

এতে ওই ইউনিয়নের ভোটাররাসহ সবাই দ্বিধাদ্বন্দ্বের মধ্যে পড়েছিলেন। আমাদের কাছেও এসব বিষয়ে একাধিক অভিযোগ আসতো।

তবে শেষ পর্যন্ত সবাইকে পিছনে ফেলে বর্তমান চেয়ারম্যান শহিদুল হক জনগণের ভোটে আবারও নির্বাচিত হয়েছেন। আশা রাখি এবার তাদের পারাবারিক দ্বন্দ্বের অবসান হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button