রংপুরস্থানীয়

হরহামেশাই ঘটছে সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনা,সিলিন্ডারের বোতল যেন আস্ত বোমা

তারাগঞ্জ হাটবাজারের সড়কের ধারেও ঘটেছিল গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফিারণের ঘটনা।

তারার আলো অনলাইন ডেস্ক:-
যতই দিন গড়াচ্ছে, পাল্লা দিয়ে বাড়ছে এলপিজি সিলিন্ডারের চাহিদা। কারণ দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে এখনো প্রাকৃতিক গ্যাসলাইন সংযোগ দেওয়া সম্ভব হয়নি।

বিশেষ করে গ্রামে এসব গ্যাস সিলিন্ডার রান্নার কাজে বেশি ব্যবহৃত হচ্ছে। এছাড়াও সিএনজি চালিত বাস, ট্রাক, অটো রিকশাতেও জ্বালানি হিসেবে সিলিন্ডারজাত গ্যাস ব্যবহৃত হয়। কিন্তু দুর্ভোগ্যের বিষয়, ব্যবহৃত এসব সিলিন্ডারের একটা বৃহদাংশ মেয়াদ উত্তীর্ণ।

যার ফলে হরহামেশাই ঘটছে সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনা। আবার বাসা-বাড়িতে গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারের নিয়ম না জানার জন্যেও ঘটছে দুর্ঘটনা।

এই তো বেশ কিছুদিন আগে তারাগঞ্জ সদর বাজারের তারাগঞ্জ-কিশোরগঞ্জ সড়কের ধারে মিনালের চায়ের দোকানে রাখা গ্যাস সিলিন্ডারের বিস্ফোরণ ঘটে।

এতে করে পুরো বাজারের ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করে। এসময় তারাগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স কর্মীরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অত্যান্ত দক্ষতার সাথে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। ফলে বাজারের ব্যবসায়ীদের আতঙ্ক কাটে।

বর্তমানে দেখা যায় এ বাজারের বিভিন্ন দোকানের সামনে বিক্রির জন্য যত্রতত্র এ এ গ্যাস সিলিন্ডারের বোতল সাজিয়ে রাখা হয়েছে। ফলে যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

আর এ দুর্ঘটনা থেকে এড়াতে আমাদের আগে থেকে সাবধানতা অবলম্বন করা দরকার। আমরা সবাই সাবধান হই নিয়ম মেনে গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহার করি। এবং দুর্ঘঘটনা এড়াতে গ্যাস সিলিন্ডারের বোতল গুলো নিরাপদ স্থানে রাখি।

এতে মানুষের জীবননাশের শঙ্কা ক্রমেই বাড়ছে। তাই জনজীবনের নিরাপত্তার স্বার্থে বাজারে ব্যবহৃত এসব মেয়াদ উত্তীর্ণ সিলিন্ডার অপসারণ ও গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কিত লিফলেট বিলি করার মাধ্যমে জনগণের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য বিস্ফোরক অধিদপ্তরের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button