নীলফামারীস্থানীয়

লক্ষণপুর স্কুল ও কলেজের শিক্ষক এবং তারাগঞ্জের এক প্রধান শিক্ষিকার স্বামী রুহুল আমিনের ইন্তেকাল

তারাগঞ্জের সয়ার ইউনিয়নের বাসিন্দা। রুহুল আমিন, বয়স ( ৫৫)

স্টাফ রিপোর্টার, সৈয়দপুর (নীলফামারী) :
নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার লক্ষণপুর স্কুল এন্ড কলেজের সহকারি শিক্ষক (কৃষি শিক্ষা) রুহুল আমিন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শনিবার (৮ জানুয়ারী) সকাল সাড়ে ৯টায় স্থানীয় ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি . . . রাজিউন)।

মৃত্যুকালে তাঁর হয় হয়েছিল ৫৫ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়ে, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্যক আত্মীয়-স্বজন ও বহু গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় মরহুম রুহুল আমিনের কর্মস্থল লক্ষণপুর স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে তাঁর প্রথম জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

পরে বাদ জোহর বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের শাইল্যার মোড় ঈদগাহ্ মাঠ দ্বিতীয় নামাজে জানাজার নামাজ এবং শেষে বাদ মাগরিব তাঁর গ্রামের বাড়ি রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার সয়ার ইউনিয়নের সয়ার কাজীপাড়ায় তৃতীয় জানাজার নামাজ শেষে মরহুমকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

পৃথক পৃথক জানাজার নামাজে বিপুল সংখ্যক মানুষ অংশ নেন।

মরহুম রুহুল আমিন ছিলেন রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার মধুরামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লাছিমা আক্তারের স্বামী।

তাঁর মৃত্যুতে লক্ষণপুর স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রকৌশলী একেএম সামছুর রহমান, অধ্যক্ষ রেজাউল করিম রেজা, সাবেক অধ্যক্ষ আলহাজ্ব মো. আব্দুল আজিজ,সহকারি প্রধান শিক্ষক মো. সাইদুল ইসলাম, বাঙ্গালীপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শ্রী প্রণোবেশ চন্দ্র বাগচী,

নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ডা. মো. শাহাজাদা সরকার, সৈয়দপুর সানফ্লাওয়ার স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোখলেছুর রহমান জুয়েল, শিক্ষক নাছিম রেজা শাহ্, সাংবাদিক তোফাজ্জল হোসেন লুতু শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button