জাতীয়

শেখ রেহানার ৬৭তম জন্মদিন আজ

তারার আলো অনলাইন ডেস্ক:-বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট মেয়ে ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বোন শেখ রেহানার ৬৭তম জন্মদিন আজ। ১৯৫৫ সালের আজকের এই দিনে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় তিনি জন্মগ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলন-সংগ্রামে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাসহ দলের পাশে থেকে অনুপ্রেরণা, সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন শেখ রেহানা।

শেখ রেহানার সাদামাটা জীবনচরিত ও অতিথিপরায়ণতা সবার নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছে। ১৯৫৫ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর তিনি জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গন্ধুকে সপরিবারে হত্যার সময় প্রাণে বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। ঐ হত্যাকাণ্ডের কিছুদিন আগে জার্মানিতে বেড়াতে যান দুই বোন। শেখ হাসিনার স্বামী ড. এম ওয়াজেদ মিয়ার কর্মস্থল ছিল জার্মানি। হত্যাকাণ্ডের রাতে দুই বোন ছিলেন বেলজিয়ামে। নৃশংস সেই হত্যাকাণ্ডের পর পরিস্থিতি বদলে যায় দ্রুত। পরে জার্মানি থেকে ভারতে আসেন তারা। এরপর লন্ডনে গিয়ে বসবাস শুরু করেন শেখ রেহানা। সরাসরি রাজনীতিতে দেখা যায়নি শেখ রেহানাকে। তবে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের কাছে ‘ছোট আপা’ হিসেবে পরিচিত তিনি।

(ছবি সংগৃহীত)

রাজনীতিতে না জড়ালেও জনহিতৈষী ও জনকল্যাণকর কাজেও সব সময় ভূমিকা রেখে আসছেন তিনি। এক্ষেত্রে মা বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের পরিপূরক হয়ে উঠেছেন নিজ কর্ম এবং যোগ্যতার মাপকাঠিতে। বড় বোন শেখ হাসিনার সঙ্গে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক বাড়িটি স্মৃতি জাদুঘর করে দেশের জনগণের জন্য উৎসর্গ করে দিয়েছেন শেখ রেহানা। একইভাবে ধানমন্ডিতে তার নামে বরাদ্দ বাড়িটিও দান করে দিয়েছেন দেশের কাজে। বড় বোন রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার কাছে যিনি শুধুই আদরের রেহানা। আর সবার কাছে ‘ছোট আপা’ বলে পরিচিত ও সম্মানিত।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক শফিক আহমেদ সিদ্দিক ও শেখ রেহানা দম্পতির তিন ছেলেমেয়ে। তাদের মধ্যে বড় মেয়ে রেজওয়ানা সিদ্দিক টিউলিপ ব্রিটিশ পার্লামেন্টে লেবার পার্টির একজন এমপি। ছেলে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ঢাকায় একটি আন্তর্জাতিক সংস্থায় কর্মরত। আর ছোট মেয়ে আজমিনা সিদ্দিক লন্ডনে কন্ট্রোল রিস্কস নামে একটি প্রতিষ্ঠানের গ্লোবাল রিস্ক অ্যানালাইসিস সম্পাদক।

বরাবরের মতো এবারও শেখ রেহানার জন্মদিনে তেমন কোনো আয়োজন নেই। কেবল পরিবারের সদস্য ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের ফুলেল শুভেচ্ছায় তার জন্মদিন উদযাপন হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button