রংপুর

সন্ত্রাসীদের হামলায় শিক্ষক ও শিক্ষার্থী গুরুত্বর আহত,টাকা ও মোবাইল ছিনতাই

তারার আলো অনলাইন ডেস্ক:-রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষক ও এক শিক্ষার্থী বহিরাগত সন্ত্রাসী ও ছিনতাইকারীদের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদেরকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) পৃথক এ দুটি ঘটনা ঘটে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর গোলাম রব্বানী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও শিক্ষার্থীরা জানান, রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জেন্ডার অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী পরাগ মাহমুদ ভোররাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নম্বর গেট দিয়ে পার্কের মোড়ের পারকিউ ছাত্রাবাস থেকে সরদারপাড়ায় বন্ধুদের ছাত্রাবাসে যাচ্ছিলেন। এসময় তিন অজ্ঞাত যুবক তাকে রাস্তায় দাঁড় করিয়ে মোবাইলফোন ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। তবে পরাগ তাতে বাধা দেওয়ায় ছিনতাইকারীরা চাপাতি দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে। পরে তার মোবাইলফোনটিও নিয়ে নেয় তারা।

শিক্ষার্থীরা প্রক্টর গোলাম রব্বানীকে বিষয়টি জানালে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাম্বুলেন্সে করে পরাগকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে ভোরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মনিরুজ্জামান মঞ্জু মর্নিংওয়ার্কে বের হয়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন। একদল সন্ত্রাসী ছুরি ও রামদা দিয়ে মাথা-ঘাড় ও শরীরের বিভিন্ন অংশে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে তাকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। এসময় তার মোবাইলফোনটিও ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা। পরে পথচারী ও স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ বিষয়ে রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর গোলাম রব্বানীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, খবর পেয়ে ভোর সাড়ে ৫টার দিকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে আহত শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর সঙ্গে দেখা করে প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button