নীলফামারী

সৈয়দপুরে থানার উপপরিদর্শক সাহিদুর রহমান পেলেন বিশেষ সম্মাননা পুরস্কার

স্টাফ রিপোর্টার, সৈয়দপুর (নীলফামারী) :
একটি ক্লুলেস চুরি মামলার রহস্য উদ্ঘাটনে অবদান রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ বিশেষ সম্মাননা পুরস্কার পেলেন নীলফামারীর সৈয়দপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. সাহিদুর রহমান।

সোমবার নীলফামারী জেলা পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় তাকে ওই পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে।

বাংলাদেশ পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য, বিপিএম, এর পক্ষে তাঁর হাতে ওই পুরস্কার তুলে দেন নীলফামারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান, বিপিএম, পিপিএম।

অনুষ্ঠানে তাকে বিশেষ সম্মাননা পুরস্কার হিসেবে একটি ক্রেস্ট, প্রাইজবন্ড ও সনদপত্র প্রদান করা হয়েছে। এ সময় নীলফামারী জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. সাহিদুর রহমান নীলফামারীর সৈয়দপুর থানায় যোগদানের পর থেকে ওয়ারেন্টভূক্ত এবং সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেপ্তার, বিভিন্ন মামলার তদন্ত গুরুত্ব দিয়ে দ্রুততার সঙ্গে তদন্তের কাজ সম্পন্ন, আইনশৃংখলা রক্ষায় বিশেষ অবদান রাখাসহ তাঁর ওপর অর্পিত দায়িত্ব-কর্তব্য অত্যন্ত ন্যায়, নিষ্ঠা ও সততার সঙ্গে পালন করে আসছেন।

সর্বশেষ গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর সৈয়দপুর শহরের বাঁশবাড়ী আল-ফারুক একাডেমি সংলগ্ন এলাকার জনৈক আকরামের একটি পালসার ১৫০সিসি’র মোটরসাইকেল চুরি যায়।

এ ঘটনায় মোটরসাইকেল মালিক আকরাম সৈয়দপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। মূলতঃ এটি ছিল একটি এক্লুলেস চুরির মামলা।

পরবর্তীতে থানা থেকে এ মামলাটি তদন্তের দায়িত্বভার দেয়া হয় থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাহিদুর রহমানকে।

তিনি মামলাটি তদন্ত করতে গিয়ে প্রযুক্তি ও গোপন সোর্সের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে অল্প সময়ে চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলটি নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জ উপজেলার মাগুড়া চেকপোস্ট দর্জিপাড়া থেকে উদ্ধারসহ চোর চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেপ্তার করেন।

আর এক্লুলেস চুরির মামলার রহস্য উদ্ঘাটন ও আসামীদের গ্রেপ্তারে অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ তাকে ওই বিশেষ সম্মাননা পুরস্কার প্রদান করা হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button