নীলফামারী

সৈয়দপুরে বিয়ের মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণঃ দুই সহযোগীসহ ধর্ষক গ্রেপ্তার

স্টাফ রিপোর্টার, সৈয়দপুর (নীলফামারী):
নীলফামারীর সৈয়দপুরে বিয়ের মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে এক কলেজ ছাত্রীকে (১৯) ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। নির্যাতনের শিকার কলেজ ছাত্রী নিজে বাদী হয়ে গত বুধবার রাতে ওই মামলাটি দায়ের করেন।

এ মামলায় দায়েরের পর পরই অভিযুক্ত আসামী জায়েদ আলী জয়কে (২১) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আর

বৃহস্পতিবার (৩১ মার্চ) এ ধর্ষণ ঘটনার দুই সহযোগী সৈয়দপুর প্লাজার ফুড প্লেস রেস্টুরেন্টর স্বত্তাধিকারী মাহিন আহমেদ প্রান্ত (২২) এবং দুবাই রেস্টুরেন্টের মালিক মো. ওয়াহিদকে (২৮) গ্রেপ্তার করা হয়।

মামলার আরজি সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের চৌমুহনীবাজার সংলগ্ন বাড়াইশালপাড়ার মো. গাজীউর রহমানের ছেলে জায়েদ আলী জয়। আর সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বী কলেজ ছাত্রী গত ২০১৮ সালে সৈয়দপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণিতে অধ্যয়নকালে পরিচয় হয় যুবক জায়েদ আলী জয়ের সঙ্গে। যুবক জায়েদ আলী জয় পরিচয়ের সূত্র ধরে ওই কলেজ ছাত্রীকে প্রথমে প্রেমের প্রস্তাব দেয়।

কিন্তু ওই ছাত্রী তা প্রতাখ্যান করায় রাস্তাঘাটে একাকি পেলেই বিভিন্ন কৌশলে প্রেম নিবেদন করাসহ উত্ত্যক্ত আসছিলেন ওই যুবক। এর এক পর্যায়ে ছাত্রী বিষয়টি বাবা-মাকে অবহিত করেন। এরপর পরিবারের পক্ষ থেকে কলেজ ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত না করার জন্য তার বাবা-মাসহ জয়কে অনুরোধ করা হয়।

কিন্তু এতে যুবক জয় আরও ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। পরবর্তীতে গত ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে ওই ছাত্রীকে জরুরী কথা আছে বলে সৈয়দপুর প্লাজায় আপন রেস্টুরেন্টের ডেকে নেয় যুবক জয়। সেখানে ওই ছাত্রীকে প্রেম ভালবাসার কথা বলে এবং হিন্দু ধর্ম হতে ধর্মান্তরিত করে বিয়ের মিথ্যে প্রলোভন দেখিয়ে ফুসলিয়ে তাঁর ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে যুবক জয়। এরপর ওই যুবক মুঠোফোনে ওই ছাত্রীর সঙ্গে প্রায় প্রতিদিনই প্রেম ভালবাসার কথা বলতো এবং বিভিন্ন সময়ে নানা স্থানে নিয়ে গিয়ে প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণ করতো।

সর্বশেষ গত ২০ মার্চ ওই ছাত্রীকে সৈয়দপুর প্লাজার তৃতীয়তলায় ফুড প্লেস রেস্টুরেন্ট নিয়ে গিয়ে মিথ্যে বিয়ের প্রতিশ্রæতি দিয়ে ধর্ষণ করে ওই যুবক। এরপর ২৬ মার্চ তাকে সনাতন ধর্ম হতে ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করবে বলে আবারও প্রতিশ্রæতি দেয় যুবক জয়। কিন্তুওই দিন (২৬ জুন) যুবক জায়েদ আলী জয় মোবাইল ফোনে তাকে বিয়ে করা সম্ভব নয় বলে ওই ছাত্রীকে সাফ জানিয়ে দেয়।

এ অবস্থায় নির্যাতনের শিকার কলেজ ছাত্রী নিজে বাদী হয়ে গত ৩০ মার্চ ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে (সংশোধনী/০৩) এর ৯ (১) ধারায় যুবক জায়েদ আলী জয়ের বিরুদ্ধে সৈয়দপুর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

সৈয়দপুর থানার উপপরিদর্শক আহসান হাবিবকে মামলাটি তদন্তের দায়িত্বভার দেওয়া হয়। তদন্তকারী কর্মকর্তার নেতৃত্বে থানা পুলিশ ওই দিন রাতেই উপজেলার বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের চৌমুহনীবাজার এলাকা থেকে মামলার অভিযুক্ত আসামী জায়েদ আলী জয়কে গ্রেপ্তার করেন।

পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার দুপুরে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় সহযোগী সৈয়দপুর প্লাজার ফুড প্লেস রেস্টুরেন্টের স্বত্তাধিকারী মো. মাহিন আহমেদ (২২) ও দুবাই রেস্টুরেন্টের মালিক ওয়াহিদ (২৮) করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত মাহিন আহমেদ সৈয়দপুর শহরের চাঁদনগর এলাকার নুর মোহাম্মদ এবং মো. ওয়াহিদ শহরের মুন্সিপাড়া তেজপাতা গাছ মোড় এলাকার মো. জুম্মানের ছেলে।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবুল হাসনাত খান এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা দায়েরও তিন আসামীকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান,গ্রেপ্তারকৃতদের গতকাল বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে নীলফামারী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button