নীলফামারী

সৈয়দপুরে মাইক্রোবাস,জীপ,কার,পিকআপ উপ-কমিটির প্রতিবাদ সভা

স্টাফ রিপোর্টার, সৈয়দপুর:-নীলফামারী জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের (রেজিঃ নং- রাজ: ২২০) মাইক্রোবাস, জীপ, কার, পিকআপ উপ-কমিটির এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে যাত্রী পরিবহন নিয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভার সিদ্ধান্তসমূহ না মেনে সরকারি-বেসরকারি এয়ারলাইন্সের নিজস্ব গাড়ীতে যাত্রী পরিবহনের প্রতিবাদে ওই সভা হয়।

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের মাইক্রোবাস, জীপ, কার ,পিকআপ উপকমিটির কার্যালয়ে ওই সভা হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করেন নীলফামারী জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক ও মাইক্রোবাস, জীপ, কার, পিকআপ উপকমিটির সভাপতি পরিবহন শ্রমিক নেতা মো. মমতাজ আলী।

উক্ত সভায় নীলফামারী জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. আলতাফ হোসেন ও নীলফামারী জেলা মাইক্রোবাস, জীপ, কার, পিকআপ মালিক সমিতির সড়ক সম্পাদক কাইয়ুম খান ডলফিন প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।
সভায় নীলফামারী জেলা বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম -সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন, সড়ক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শফিক, প্রচার সম্পাদক আব্দুল জলিল,কোষাধ্যক্ষ মনছুর আলী, ক্রীড়া সম্পাদক স্বপন মিয়া, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক লেবু মিয়া, কার্যকরী সদস্য রবিউল ইসলাম, মাইক্রোবাস, জীপ, কার, পিকআপ উপ-কমিটির সম্পাদক মো. মানিক মিয়াসহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় পরিবহন নেতৃবৃন্দ বলেন, বর্তমানে সৈয়দপুর বিমানবন্দর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উন্নীতকরণের কাজ অব্যাহত রয়েছে। সৈয়দপুর বিমানবন্দরে প্রতিদিন ঢাকা- সৈয়দপুর-ঢাকা রুটে সরকারি বেসরকারি বিমান সংস্থার ১৪টি বিমান উঠানামা করছে। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটেও বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট পরিচালনা শুরু হচ্ছে।

এ অবস্থায় সৈয়দপুর বিমানবন্দর থেকে বিমান যাত্রীদের বিভিন্ন গন্তব্যে পরিবহনে স্থানীয় মাইক্রোবাস, জীপ ও কার মালিক এবং শ্রমিকেরা অগ্রাধিকার পাবেন এটি স্বাভাবিক। এছাড়াও গত ২০১৮ সালের ১৩ ফেব্রæয়ারি নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরের যাত্রী পরিবহন নিয়ে বেসরকারি বিমান সংস্থার প্রতিনিধি, সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যবস্থাপক এবং নীলফামারী জেলা পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সৈয়দপুর বিমানবন্দরের তৎকালীণ ব্যবস্থাপক মো. শাহীন হোসেনের সভাপতিত্বে তারই অফিস কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় নীলফামারী জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের তৎকালীণ সভাপতি মরহুম আখতার হোসেন বাদল, নীলফামারী জেলা মাইক্রোবাস,কার ও পিকআপ মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং বেসরকারি বিমান সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

ওই সভায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে দিনের প্রথম ভাগে অবতরণ করা বিমানগুলোর যাত্রীদের মধ্য থেকে নীলফামারী জেলা মাইক্রোবাস, জীপ, কার ও পিকআপ মালিক সমিতির অন্তর্ভূক্ত একটি মাইক্রোবাসে ও একটি কার প্রথম সিরিয়ালে যাত্রী পূর্ণ হওয়ার পর দ্বিতীয় সিরিয়ালে বেসরকারি এয়ারলাইন্সের একটি করে গাড়ী স্ব স্ব বিমানের যাত্রী নিয়ে রংপুর,দিনাজপুর,ঠাকুরগাঁও ও পঞ্চগড় নিয়ে যেতে পারবে বলে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছিল । আর বাদ বাকি যাত্রীদের স্থানীয় মাইক্রোবাস, জীপ ও কার মালিক সমিতির গাড়ীগুলো পরিবহন করবে। এছাড়াও সে সময় সৈয়দপুর বিমানবন্দর থেকে বিমান যাত্রীদের পরিবহনের ক্ষেত্রে আরো বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছিল। আর ওই সব গৃহিত সিদ্ধান্তসমূহ লিখিত আকারে গ্রহন করা হয়। যাতে সৈয়দপুর বিমানবন্দরের তৎকালীণ ব্যবস্থাপক শাহীন আহমেদ স্বাক্ষর করেছিলেন। কিন্তু বর্তমানে বেসরকারি বিমান সংস্থাগুলো ওই লিখিত সিদ্ধান্ত না মেনে তাদের নিজস্ব গাড়ীতে বিমান যাত্রী পরিবহনের পাঁয়তারা করছে।

এতে পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দ চরম ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করেন। সেই সঙ্গে পরিবহন নেতৃবৃন্দ বিগত সময়ে সিভিল এভিয়েশন তথা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের মধ্যে অনুষ্ঠিত সভার সিদ্ধান্তসমূহ মেনে চলার দাবি জানান। অন্যথায় আগামীতে তাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি দেয়ার হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন সভায় নেতৃবৃন্দ ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button