নীলফামারী

সৈয়দপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন

স্টাফ রিপোর্টার,সৈয়দপুর (নীলফামারী):
সারাদেশের মতো নীলফামারীর সৈয়দপুরে নানা আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্যদিয়ে ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস- ২০২২ উদযাপন করা হয়েছে। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি পালন করা হয়।

সকাল সাড়ে আটটায় স্থানীয় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে সকাল পৌণে নয়টায় সেখানে কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে অনু্িষ্ঠত হয়েছে। এতে পুলিশ, আনসার-ভিডিপি, বিএনসিসি, ফায়ারসার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, স্কুল ,কলেজ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্কাউটস, রোভার স্কাউটস, গার্লস গাইড, কাবদল ও শিশু কিশোর সংগঠনগুলো অংশ নেয়। এর আগে সেখানে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। পরে সেখানে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনায় বক্তব্য দেন জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য রাবেয়া আলীম, সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মোখছেদুল মোমিন এবং নির্বাহী অফিসার মো. শামীম হুসাইন। এরপর সেখানে খেলাধূলা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শেষে কুচকাওয়াজ, ডিসপ্লে এবং খেলাধূলায় বিজয়ী প্রতিষ্ঠান ও ছাত্রছাত্রীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
এছাড়াও দিবসটিতে সৈয়দপুর উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে সকল সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস আদালতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, প্রত্যূষে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসের শুভ সূচনা, শহীদবেদীতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক নেতৃত্বে এবং সূবর্ণজয়ন্তীতে দেশের উন্নয়ন বিষয়ে আলোচনা সভা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, পুরস্কার বিতরণী, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র প্রদর্শন,

জাতির সুখ-শান্তি, সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি কামনা করে মসজিদ, মন্দির, গীর্জা ও প্যাগোডাসহ অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা, হাসপাতাল ও এতিমখানায় উন্নত মানের খাবার পরিবেশন, শহরের প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপগুলো জাতীয় ও অন্যান্য পতাকা দিয়ে সজ্জিতকরণ, প্রীতি ফুটবল ম্যাচ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এসব অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা, উপজেলা প্রশাসনের সকল দপ্তরের কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ, সুধীজন, জনপ্রতিনিধি ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

দিবসটিতে সৈয়দপুর উপজেলা প্রশাসন ছাড়াও সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক দল ও এর সহযোগী অঙ্গসংগঠনসমূহ, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনগুলো পৃথক পৃথকভাবে নানা কর্মসূচি পালস করেছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button