রংপুর

হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যুর ঘটনায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা

স্টাফ রিপোর্টার(রংপুর)
রংপুরের পীরগাছায় আকবর আলী(৪৫) নামে এক ব্যক্তির হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

একপক্ষ ছেলেকে শাসন করার সময় তার হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুর দাবি করলেও অপর পক্ষ বলছেন চেয়ারম্যানের হুমকি পেয়েই তার মৃত্যু হয়।

এ নিয়ে বর্তমান চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম ও চেয়ারম্যান প্রার্থী জিল্লুর রহমানের সমর্থকদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যেকোন মুহূর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। শুক্রবার(২২ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলার অন্নদানগর ইউনিয়নের জগজীবন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আকবর আলী ওই এলাকার মৃত কুদ্দুস আলীর ছেলে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, অন্নদানগর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী আমিনুল ইসলাম শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে নির্বাচনী কাজে জগজীবন গ্রামে যান। এ সময় এক বাড়িতে ভোট চাওয়ার সময় মুকুল মিয়া নামে একজন বেরিয়ে এসে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে তাকে অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করেন। মুকুল মিয়া ওই ইউনিয়নের আরেক বিএনপি সমর্থীত চেয়ারম্যান প্রার্থী জিল্লুর রহমানের সমর্থক।

পরে আমিনুল ইসলাম পাশের বাজারে মুকুল মিয়ার বাবা আকবর আলীর চায়ের দোকানে যান। এ সময় তিনি আকবর আলীকে তার ছেলের অপমানের কথা জানিয়ে বলেন, আপনারা আমাকে ভোট না দিতে পারেন কিন্তু অপমান করতে পারেন না।
এ খবর শুনে আকবর আলী বাড়িতে গিয়ে ছেলেকে শাসন করার সময় অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যুবরণ করেন আকবর আলী।

অন্নদানগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বলেন, ভোট চাইতে গেলে মুকুল আমার সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। অশ্লীল ভাষায় কথা বলেন। পরে শুনতে পারি আকবর আলী তার ছেলেকে শাসন করতে গিয়ে মৃত্যু হয়েছে।

চেয়ারম্যান প্রার্থী জিল্লুর রহমান বলেন, মুকুল ও আকবর আমার সমর্থক। তারা আমাকে ভোট দিবে শুনে আমিনুল চেয়ারম্যান সকালে তাদের বাড়িতে গিয়ে মুকুলকে ঘুম থেকে তুলে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন। পরে আকবর আলীকেও একইভাবে গালাগালির পর দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। এ ঘটনায় ভয়ে আকবর আলীর হার্টঅ্যাটাকে মৃত্যু হয়।

পীরগাছা থানার ওসি আজিজুল ইসলাম বলেন, ছেলের সঙ্গে বাগবিতণ্ডার খবর শুনে আকবর আলী তার ছেলেকে শাসন করার সময় হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে।

নিহতের পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় মরদেহ দাফনের অনুমতি দেয়া হয়েছে। পীরগাছা উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে দ্বিতীয় ধাপে ১১ নভেম্বর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button