কুড়িগ্রাম

হেলিক্যাপ্টারে উড়ে এলে বর

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি
বর শিক্ষাথী, কনেও শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে দুজনের পরিচয়। এর প্রেম, তারপর পরিণয়। কিন্তু বরের ইচ্ছা প্রেয়সী নববধুকে হেলিক্যাপ্টারে উড়ে নিয়ে আসবেন। পারিবারিকভাবে বিয়ের সব আয়োজনেও সম্পন্ন।

আজ শুক্রবার তাদের বিয়ে। শুক্রবার দুপুরে হেলিক্যাপ্টারে করে নববধুকে নিতে আসেন বর। বরের নাম রাসেল হাসান, তিনি সাভার হেমায়েতপুরের শিল্পপতি শাহাজাহান আলীর পুত্র। ঘটনাটি কুড়িগ্রামে উলিপুর উপজেলায়। কনে তানজিনা পারভীন উলিপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলমের ।
দারিদ্রপীড়িত জেলা কুড়িগ্রাম। এ এলাকার বেশির ভাগ মানুষের দারিদ্রসীমার নিচে বসবাস। হেলিক্যাপ্টারে চড়ে বিয়ে করতে আসা এ এলাকায় বিরল। আওয়ামী লীগ নেতার মেয়ের বিয়ে হেলিক্যাপ্টারে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

স্থানীয় উৎসুক জনতা আব্দুল হাই, মমেনা বেগম, মোজাফ্ফর আলীসহ কয়েকজনের সাথে কথা হলে তারা বলেন, জীবনে মেলা বিয়ে দেখছি, হেলিক্যাপ্টারত চড়ি বর আইসে এই প্রথম দেখলং। উলিপুরত মেলা বড় লোক আছে, কিন্ত কাইও হেলিক্যাপ্টারত বিয়ে করে নাই। এইদন বিয়ে প্রথম দেখলং হামরা।
জানা গেছে, উলিপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম ৪ কন্যা সন্তানের জনক। স্থানীয়ভাবে প্রথম মেয়ের বিয়ে দেন। দ্বিতীয় মেয়ে তানজিনা পারভীন ব্রাক ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী। কিন্তু মেয়ে জামাইয়ের আবদার হেলিক্যাপ্টারে করে বিয়ে করবেন তারা।
কনের বাবা আওয়ামী লীগের নেতা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, মেয়ে-জামাইয়ের আবদার পূরণ করতে এ আয়োজন। এই প্রথম এ এলাকায় হেলিক্যাপ্টারে চড়ে আমার মেয়ের বিয়ে হল। তাদের আবদার পূরণ হয়েছে, এটা ভেবে খুব ভাল লাগছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button